সিরাজউদ্দৌলা নাটকের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন উত্তর পিডিএফ

সিরাজউদ্দৌলা নাটকের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন উত্তর পিডিএফসিরাজউদ্দৌলা নাটকের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন উত্তর। একাদশ-দবাদনশ শ্রেণির বাংলা সহপাঠের একটি নাটক হচ্ছে সিরাজউদ্দৌলা। এই খুব জনপ্রিয় একটি নাটক। নাটক টিতে বাংলার নবাব সিরাজউদ্দৌলা নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। সেই সময় কার ইতিহাস ব্যাখ্যা পেয়েছে নাটক টিতে। অনেক শিক্ষার্থী এই নাটকের জ্ঞানমূলক প্রশ্নের উত্তর অনুশীলন করতে চায়।

তাদের পাঠ্য বইয়ে এই প্রশ্ন গুলো দেওয়া নেই। আমি এই পোস্টে এই নাটক থেকে গুরুত্বপূর্ণ জ্ঞানমূলক প্রশ্ন গুলো সংগ্রহ করে দিয়েছি। এর সাথে প্রশ্নের উত্তর গুলো দিয়ে দিয়েছি। এগুলো পিডিএফ ফাইলে সংগ্রহ করতে পারবেন। নিচে একটি ঠিকানা দেওয়া আছে, এই ঠিকানা থেকে পিডিএফ ফাইল টি সংগ্রহ করেনিবেন।

সিরাজউদ্দৌলা নাটকের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন উত্তর

মূল বইয়ে একটি মাত্র নাটক রয়েছে। এই নাটক থেকে প্রায় সময় প্রশ্ন করা হয়। জ্ঞানমূলক প্রশ্ন গুলো অনুশীলন করার অন্যতম কারণ হচ্ছে, সৃজনশীল প্রশ্নের ক নাম্বারের উত্তর সম্পর্কে ধারনা লাভ করা। নিচে জ্ঞানমূলক প্রশ্ন গুলো দেওয়া আছে দেখেনিন।

১. নবাবের সৈন্যরা কোন ছাউনি ছারখার করে দিয়েছে?
উত্তর : নবাবের সৈন্যরা পেরিন্স পয়েন্টের ছাউনি ছারখার করে দিয়েছে।

২. কী অমান্য করা রাজদ্রোহিতার শামিল?
উত্তর : নবাবের হুকুম অমান্য করা রাজদ্রোহিতার শামিল।

৩. উমিচাঁদ কার মুক্তির জন্যে সিরাজউদ্দৌলার কাছে অনুরোধ করেন?
উত্তর : উমিচাঁদ কৃষ্ণবল্লভের মুক্তির জন্যে সিরাজউদ্দৌলার কাছে অনুরোধ করেন।

৪. কে নবাবের সবচেয়ে বিশ্বস্ত সেনাপতি ছিলেন?
উত্তর : মোহনলাল নবাবের সবচেয়ে বিশ্বস্ত সেনাপতি ছিলেন।

৫. সিরাজউদ্দৌলার ট্র্যাজিক ইতিহাস নিয়ে প্রথম নাটক রচনা করেন কে?
উত্তর : সিরাজউদ্দৌলার ট্র্যাজিক ইতিহাস নিয়ে প্রথম নাটক রচনা করেন গিরিশচন্দ্র ঘোষ।

৬. কিলপ্যাট্রিক কতজন সৈন্য নিয়ে জাহাজে হাজির হয়েছেন?
উত্তর : কিলপ্যাট্রিক ২৫০ জন সৈন্য নিয়ে জাহাজে হাজির হয়েছেন।

৭. কার হটকারিতার জন্যে ইংরেজ সৈন্যদের দুর্ভোগ?
উত্তর : ড্রেকের হটকারিতার জন্যে ইংরেজ সৈন্যদের দুর্ভোগ।

৮. সিরাজউদ্দৌলা কোথা থেকে ইংরেজদের বিতাড়িত করেন?
উত্তর : সিরাজউদ্দৌলা কলকাতা থেকে ইংরেজদের বিতাড়িত করেন।

৯. পলাশি কোন নদীর তীরে অবস্থিত?
উত্তর : পলাশি গঙ্গা নদীর তীরে অবস্থিত।

১০. কে নিজের স্বার্থ নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত বিপদের ঝুঁকি নিতে নারাজ?
উত্তর : জগৎশেঠ নিজের স্বার্থ নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত বিপদের ঝুঁকি নিতে নারাজ।

১১. নবাব কোথায় মসজিদ তৈরির নির্দেশ দেন?
উত্তর : নবাব নাসারার দুর্গে মসজিদ তৈরির নির্দেশ দেন।

১২. সিকান্দার আবু জাফর কত তারিখে মারা যান?
উত্তর : সিকান্দার আবু জাফর ১৯৭৫ সালের ৫ই আগস্ট মারা যান।

১৩. সিরাজউদ্দৌলা কোথায় বন্দি হয়েছিলেন?
উত্তর : সিরাজউদ্দৌলা ভগবানগোলায় বন্দি হয়েছিলেন।

১৪ সিকান্দার আবু জাফর কত সালে জন্মগ্রহণ করেন?
উত্তর : সিকান্দার আবু জাফর ১৯১৮ সালে জন্মগ্রহণ করেন।

১৫. ঘসেটি বেগম সম্পর্কে নবাবের কী হতেন?
উত্তর : ঘসেটি বেগম সম্পর্কে নবাবের খালা হতেন।

১৬. লবণের ইজারাদার কে?
উত্তর : লবণের ইজারাদার কুঠিয়াল ইংরেজ।

সিরাজউদ্দৌলা নাটকের সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের উত্তর

এখানে সিরাজউদ্দৌলা নাটকের সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া আছে। যারা যারা এই নাটকের সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের উত্তর পড়তে চান তারা নিচের অংশ পরুন। অথবা সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন গুলো সংগ্রহ করে নিন।

১. সন্ধি অনুযায়ী মিরজাফর মসনদে বসলেও রাজ্য চালাবে কে?
উত্তর : সন্ধি অনুযায়ী মিরজাফর মসনদে বসলেও রাজ্য চালাবে কোম্পানি।

২. সিরাজউদ্দৌলা কার নিকট থেকে টাকা ধার নিয়েছিলেন?
উত্তর : সিরাজউদ্দৌলা ঘসেটি বেগমের নিকট থেকে টাকা ধার নিয়েছিলেন।

৩. পলাশির যুদ্ধে ইংরেজদের কামান ছিল কতটি?
উত্তর : পলাশির যুদ্ধে ইংরেজদের পক্ষে কামান ছিল দশটি।

৪. সিরাজউদ্দৌলার প্রধান গুপ্তচর কে?
উত্তর : সিরাজউদ্দৌলার প্রধান গুপ্তচর হলো নারান সিং।

৫. পলাশির যুদ্ধে ইংরেজদের পক্ষে কতজন সৈন্য ছিল?
উত্তর : পলাশির যুদ্ধে ইংরেজদের পক্ষে তিন হাজার সৈন্য ছিল।

৬. পলাশির যুদ্ধে নবাবের পক্ষে কতজন সৈন্য ছিল?
উত্তর : পলাশির যুদ্ধে নবাবের পক্ষে পঞ্চাশ হাজারের বৈশি সৈন্য ছিল।

৭. সিকান্দার আবু জাফর কোন জেলায় জন্মগ্রহণ করেন?
উত্তর : সিকান্দার আবু জাফর সাতক্ষীরা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন।

৮. চুক্তি অনুসারে সিরাজউদ্দৌলার পতন হলে কোম্পানি কত টাকা পাবে?
উত্তর : চুক্তি অনুসারে সিরাজউদ্দৌলার পতন হলে কোম্পানি এক কোটি টাকা পাবে।

৯. পলাশির যুদ্ধে নবাবের পক্ষে কামান ছিল কতটি?
উত্তর : পলাশির যুদ্ধে নবাবের পক্ষে  কামান ছিল ৫৩ টি।

১০. নবাব কাকে কোম্পানি ও প্রত্যেক ইংরেজের ব্যক্তিগত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেন?
উত্তর : নবাব রায়দুর্লভকে কোম্পানি ও প্রত্যেক ইংরেজের ব্যক্তিগত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেন।

১১. সিরাজউদ্দৌলা রায়দুর্লভকে কোথায় আগুন ধরিয়ে দিতে নির্দেশ দেন?
উত্তর : সিরাজউদ্দৌলা রায়দুর্লভকে গোটা ফিরিঙ্গি পাড়ায় আগুন ধরিয়ে দিতে নির্দেশ দেন।

সিরাজউদ্দৌলা নাটকের অনুধাবন প্রশ্ন উত্তর

আপনাদের জন্য সিরাজউদ্দৌলা নাটকের অনুধাবন প্রশ্ন উত্তর দেওয়া আছে। এগুলো সৃজনশীল প্রশ্নের খ নাম্বায়ে এর জন্য প্রযোজ্য হবে। প্রশ্ন গুলো নিচে থেকে দেখেনিন।

১. ঘসেটি বেগম সিরাজউদ্দৌলাকে অভিশাপ দিলেন কেন?

উত্তর : জলসা ভেঙে দিয়ে ঘসেটি বেগমকে প্রাসাদে চলে যাওয়ার নির্দেশ দেয়ায় ঘসেটি বেগম ক্রোধে সিাজউদ্দৌলাকে অভিশাপ দেন। ঘসেটি বেগম কৌশলে নবাবকে সিংহাসনচ্যুত করে শওকত জঙ্গকে নবাব হিসেবে সিংহাসনে বসানোর ষড়যন্ত্র করেন। গুপ্তচরের মাধ্যমে এ ষড়যন্ত্রের কথা জানতে পেরে সিরাজউদ্দৌলা আকস্মিকভাবে সেখানে উপস্থিত হন এবং জলসা ভেঙে দিয়ে ঘসেটি বেগমকে প্রাসাদে চলে যাবার অনুরোধ করেন। সিরাজের এ আচরণে ক্রুদ্ধ ঘসেটি বেগম তাঁকে বন্দি করতে আসার অভিযোগে সিরাজকে অভিশাপ দেন।

২. ইংরেজ সৈন্যরা তাদের দুর্দশার জন্য ড্রেককে দায়ী করলেন কেন?

উত্তর : সকলের ধারণা ড্রেকের ভুল পদক্ষেপের জন্যই ইংরেজদের দুর্দশা। এ কারণে সবাই ড্রেককে দায়ী করলেন। নবাব সিরাজউদ্দৌলার বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধে পরাজিত ইংরেজ সেনা পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছে ভাগীরথীর জলে ভাসমান জাহাজে। কলকাতার গভর্নর রজার ড্রেকও কাপুরুষের মতো ভয়ে সেখানে পালিয়ে গেছেন। জাহাজে আশ্রয়রত সকলের অবস্থা পানীয় ও খাদ্যের অভাবে এবং নিরাপত্তার অভাবে উৎকণ্ঠায় অসহনীয় হয়ে ওঠেছে। এ রকম পরিস্থিতিতে সকলেই ড্রেককে দায়ী করেছে।

৩. ‘আমরা এমন কিছু করলাম যা ইতিহাস হবে।” কথাটির ভাবার্থ কী?

উত্তর : ‘সিরাজউদ্দৌলা’ নাটকে ইংরেজ সেনাপতি রবার্ট ক্লাইভের এ উক্তিটি নানা দিক থেকে তাৎপর্যপূর্ণ। নবাব সিরাজউদ্দৌলাকে সিংহাসনচ্যুত করে বাংলার সিংহাসন করায়ত্ত করতে নিজ নিজ সংকীর্ণ স্বার্থকে বাস্তবে রূপদান করতে সংঘবদ্ধ বিশ্বাসঘাতকদের সবাই ইংরেজদের সাথে সন্ধি করে। সন্ধিপত্রে এক এক করে জগৎশেঠ, মিরজাফর, রাজবল্লভ সবাই স্বাক্ষর দেয়। আর এর দ্বারাই সূচিত হয় বাংলার পরাধীনতার সনদ। এ সনদই শত্রুদের বিজয় বার্তা ঘোষণা করে ১৭৫৭ সালে ২৩ জুন ঐতিহাসিক পলাশীর প্রান্তরে।

সিরাজউদ্দৌলা নাটকের সৃজনশীল প্রশ্ন

এখানে আমি সৃজনশীল প্রশ্ন গুলো দিয়েছি। আপনারা নিজে নিজে উত্তর করার চেষ্টা করবেন। এগুলো খুব গুরুত্বপূর্ণ, তাই আপনাদের সাথে শেয়ার করেছি। বিভিন্ন বোর্ড পরীক্ষার প্রশ্ন গুলো এখানে সংগ্রহ করে দেওয়া হয়েছে। তাই এই প্রশ্ন গুলো অনুশীলন করলে এইচ এস সি বোর্ড প্রশ্ন সম্পর্কে ধারনা পেয়ে যাবেন। প্রশ্ন গুলো নিচে থেকে সংগ্রহ করেনিন।

আমরা যে আশা করে আছি, কখন যে মহা-সেনাপতি আসবে যার ইঙ্গিতে আমাদের মতাে শতকোটি সৈনিক বহ্নি-মুখ পতঙ্গের মতাে ছত্ৰতলে গিয়ে হাজির হাজির’ বলে হাজির হবে। হে আমার অজানা প্রলয়ংকর মহা-সেনানী, তােমায় আমি দেখি নাই, কিন্তু তােমার আদেশ আমি শুনেছি, আমি শুনেছি। আমায় যুদ্ধ ঘােষণার যে তূর্য-বাদনের ভার দিয়েছ, সে ভার আমি মাথা পেতে নিয়েছি। এ যে তােমার হুকুম ।

ক. যত বড় মুখ নয় তত বড় কথা- উক্তি কার?
খ. “প্রতারণার চেষ্টা করবেন না”- কথাটি কে, কেন বলেছেন?
গ. উদ্দীপকের বক্তব্যে সিরাজউদ্দৌলা নাটকের যে বিশেষ দিকটিকে আলােকপাত করেছে তা ব্যাখ্যা কর।
ঘ. উদ্দীপকে উল্লিখিত মহা-সেনাপতির গুণসমূহ সিরাজউদ্দৌলা নাটকের সিরাজের মাঝে থাকলেও নবাব। সিরাজউদ্দৌলা ষড়যন্ত্রের শিকার”- উক্তিটির যথার্থতা যাচাই কর ।

উত্তর দেখুন 

শেষ কথা

আমাদের সাথে শেষ পর্যন্ত থাকার জন্য আপনাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ। আশা করছি এই পোস্ট থেকে সিরাজউদ্দৌলা নাটকের জ্ঞানমূলক প্রশ্ন উত্তর সংগ্রহ করতে পেরেছেন। এই রকম আরও ভালো ভালো পোস্ট পেতে আমাদের সাথেই থাকবেন। নিচে আপনাদের জন্য শিক্ষামূলক কিছু পোস্ট দেওয়া আছে দেখেনিতে পারেন। ভালোথাকবেন, সুস্থ থাকবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *